Creating  healthier  tomorrow

Blogs

শীতে দেহের যত্নে অবশ্যই যা করবেন

Published by Meditor Admin    Jan-16-2018

Blog Image

শীত হচ্ছে একটি শুষ্ক ঋতু। আর এই শীতকালে আমাদের শরীর স্বাস্থ্যের দিকে বিশেষ নজর রাখা প্রয়োজন। সর্দি, ঠান্ডা, কাশি থেকে শুরু করে ত্বক ও চুলের নানা সমস্যা দেখা দেয় শীতকালে। তবে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় সতর্কতা গ্রহণের মাধ্যমে আমরা শীতকালেও সুন্দর ও লাবণ্যময় থাকতে পারি।

 

অনেকের শীতকালজুড়ে সর্দি, কাশি, ঠান্ডা লেগেই থাকে। অসতর্কতার কারণে এটা হতে পারে। অবশ্য অনেকের কোল্ড অ্যালার্জি থাকতে পারে।

 

যাঁদের কোল্ড অ্যালার্জির প্রবণতা রয়েছে, তাঁরা অবশ্যই শীতকাল আসার আগেই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী প্রতিরোধ ব্যবস্থা নেবেন। সাধারণ সর্দি, কাশির ব্যাপারেও কিছু সতর্কতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। যেমন : হালকা কাশি হলেই গরম তরল পানীয় পান করা যেতে পারে। এ ছাড়া সর্দিতে নাক বন্ধ থাকলে গরম পানিতে মেনথলের টুকরো ফেলে সেই ভাপ নাকে টেনে নিলে ভালো হয়। গরম পানিতে লবণের দানা ফেলে কুলকুচি বা গার্গলও করা যেতে পারে। এসব কিছুর পরও সর্দি, ঠান্ডার পরিবর্তন না হলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন।

 

আমাদের দেশে দুপুরের দিকে গরম থাকলেও সন্ধ্যার পর ঠান্ডা পড়ে। তাই হয়তো অনেক সময় গরম জামাকাপড় না পরেই আমরা বের হই। কিন্তু এ ক্ষেত্রে গরম কাপড় না পরলেও সঙ্গে রাখা খুবই প্রয়োজন।

 

শিশুদের ক্ষেত্রে খালি পায়ে হাঁটা মোটেও ঠিক নয়। মোজা পরা প্রয়োজন। এ ছাড়া শিশুদের এ সময় প্রতিরোধ হিসেবে জিঙ্ক সিরাপ খাওয়ানো যেতে পারে, তবে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুসারে।

 

এবার আসা যাক ত্বক ও চুলের কথায়। শীতকালে ত্বক শুষ্ক হয়ে ওঠে। কারো কারো ঠোঁট, হাত ও পায়ের তালু ফেটে যায়। শুষ্ক ঠোঁট বারবার জিভ দিয়ে ভেজানোর অভ্যাস অনেকেরই থাকে। এতে ঠোঁটের ক্ষতি হয়। ঠোঁটে নিয়মিত ভ্যাসলিন ব্যবহার করা দরকার। এ ছাড়া নারীরা লিপগ্লস ব্যবহার করতে পারেন। ম্যাট লিপস্টিক এ সময় না ব্যবহার করাই ভালো। সপ্তাহে দুদিন সারা শরীরে অলিভ অয়েল লাগানো প্রয়োজন।

 

এ ছাড়া গোসলের পানিতে ১৫-২০ ফোঁটা তেল ও ১৫-২০ ফোঁটা গ্লিসারিন মিশিয়ে ব্যবহার করলে ত্বক মসৃণ হয়। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে হ্যান্ড অ্যান্ড বডিলোশন ব্যবহার করলেও ত্বক খসখসে হয় না। হাত-পায়ের তালু ফাটার ক্ষেত্রে গ্লিসারিনের কার্যকারিতা অদ্বিতীয়। বেশি ফাটলে অবশ্য চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। মনে রাখবেন, শীতকালে ত্বক আপনার কাছ থেকে বেশি যত্নপ্রত্যাশী। তাই ত্বকের প্রতি নজর দিন। কমলালেবুর খোসা শুকিয়ে গুঁড়া করে দুধের সঙ্গে মিশিয়ে তা স্ক্রাবার হিসেবে সারা শরীরে ঘষে ঘষে ব্যবহার করতে পারেন, এতে বাড়তি ময়লা পরিষ্কার হয়।

 

শীতকালে চুলেরও বিশেষ যত্ন নিতে হয়। চুল একটু ছেঁটে নিলে ভালো। এ ছাড়া চুল নিয়মিত পরিষ্কার রাখবেন। টক দই, ডিম ইত্যাদি কন্ডিশনার হিসেবে ব্যবহার করবেন। এ ছাড়া কন্ডিশনার কিনতেও পাওয়া যায়। শ্যাম্পু করার আগে কুসুম গরম তেল মালিশ মাথার ত্বক ও চুলের জন্য ভালো। সপ্তাহে একদিন রিঠা ভেজানো পানি দিয়ে চুল ধুলে চুল চকচকে ও ঝলমলে হয়। কিছু সতর্কতা ও নিয়ম মেনে স্বাস্থ্যের যত্ন নিলে শীতকালে আপনিও হয়ে উঠবেন লাবণ্যময়ী ও আকর্ষণীয়।

 

লেখক : সহযোগী অধ্যাপক, ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ।